Unbeaten Atk’s run came to halt by the pressing football of
FC Pune City at Balewadi complex in Pune on Saturday. A quick goal by
Jackichand drew the conclusion 1-0 in favor of Pune. Atk coach, Habas’
defensive strategy fell flat on face while confronting confront English style
pressing football of David Platt.
Defensive strategy of Atk coach, Antonio Habas, which usually
leaves the opponent was thrashed by the Pressing football of Pune. As Kolkata focuses
on playing short passes to secure score from counter attack. However tonight the
scenario was completely changed when Pune from the time of kick off showed
their English style of pressing football. Tuncay, Jacki and Ruiz relentlessly
chased through the defensive third of Atk to pick up the early goal. Stats of
the match gives a clear picture to show how the match went in opposition of
Atk. It goes like this when Pune had 14 shots aiming on target where Atk failed
to get more than 2 shots. Vital role played by Zokora at the central midfield. He
along with Rodrigues and Lyngdoh Zokora made a good cohesion. Jhonson was
hardnut to crack in defense, as he received a great support from experienced
Gourmangi. Ravanan and Shorey moved quite fast through wings.
Eventually David Platt received the fruit of the rotation
theory tonight. Pune’s reserve bench was proved stronger and fitter then
Kolkata. Pune coach showcased how to challenge against counter attack based
football of Habas.
Conclusively, Habas should sfit to his plan-B to bring back
AtK in action.

 অবশেষে হারল হাবাসের দল। পুণের কাছে তাদের ঘরের মাঠে ০-১ গোলে হার স্বীকার করতে হল অর্ণবদের। জ্যাকিচন্দের একমাত্র গোলে জয় হাসিল করে এফসি পুণে সিটি।
এই হারের ফলে অপরাজিত দলের তকমা খসে পড়ল এটিকে-র। একইসঙ্গে লম্বা লীগের দৌড়ে কিছুটা পিছিয়ে পড়ল কলকাতা। অন্যদিকে পুণে প্রতিআক্রমণে নির্ভর করে আর রিজার্ভ বেঞ্চের শক্তি ও স্ফূর্তি কাজে লাগিয়ে বাজিমাত করলেন পুণের কোচ ডেভিড প্ল্যাট। এমনিতে এটিকে কোচ হাবাসের দুর্ভেদ্য রক্ষণের সুখ্যাতি চারিদিকে। ছোট ছোট পাসের ফুটবলের সঙ্গে প্রতিআক্রমনে ভর করে প্রতিপক্ষকে কাবু করে এটিকে। তবে এদিন ঘরের মাঠে পুণের ইংলিশ স্টাইলের প্রেসিং ফুটবল বারে বারে সমস্যায় ফেলে এটিকে-কে। কলকাতার রক্ষণে প্রতিটি বলে অনবরত তাড়া করতে থাকেন পুণের টুনচে, জ্যাকি, রুইজরা। তারই ফল স্বরূপ আসে পুণের গোল। আর পরিসংখ্যান দেখলে আরও স্পষ্ট হয়ে যায় পুণের কাছে কলকাতার বশ্যতা স্বীকারের বিষয়টা। পুণে যেখানে ১৪টি শট নিয়েছে গোলে, কলকাতা করেছে ২টি শট। পুণের মাঝমাঠে জোকোরা অনবদ্য,  আজও তাঁর কাঁধে ছিল গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। রক্ষণে জনসন ছিলেন দুরন্ত ফর্মে। তার পাশে তাল মিলিয়ে পুণে রক্ষন সামলেছেন গৌরমাঙ্গি।
তবে এই হার দেখিয়ে দিল প্ল্যান-বি তৈরি রাখতে হবে হাবাসকে।